তা কিভাবে হয়?

আগেকার যােগের মহাপণ্ডিত এক পাদ্রী

সেই পাদ্রী বলতাে আল্লাহ বলতে কেউ নেই। এই আসমান-জমিন, পাহাড়-পর্বত, গাছ-পালা সব কিছু এমনি এমনিই হয়েছে বা হয়। তখনকার সময়ে কোনাে আলেম-ওলামা তার সাথে তর্ক ও যুক্তি দিয়ে পারত না। তখন আলেম-ওলামা মুসলমানরা এক হতাশার মধ্যে ছিল। তখন এলমে দ্বীন শিক্ষারত এক কিশাের তালেবে এলেম ঐ পাদ্রীর কাছে প্রস্তাব দিল যে, আমি আপনার প্রশ্নের জবাব দেব । আনুষ্ঠানিকভাবে দিন তারিখ ধার্য্য করুন।

পাদ্রী ভাবলেন শত শত মুসলমানদের আলেম-ওলামা আমার সাথে বাহাস করে পারেনি । আর এই ছােট্ট একটি বালক পারবে? দিন তারিখ ধার্য করা হল । অমুক তারিখ দুপুর ১২টার সময়। ঐ নির্ধারিত সময়ে ও নির্ধারিত স্থানে পাদ্রীর পক্ষের লােক ও আলেম ওলামা মুসলমানরা এমনভাবে কৌতুহল করে ছােট্ট একটি বালক এই মহাপাদ্রীর জবাব দেবে। মানুষ এমনভাবে সমবেত হয়েছে তিল ফেলার ঠাই নেই। কি অবাক! টাইম পার হয়ে যাচ্ছে বালক তাে আসে না। সবাই উপস্থিত, মুসলমানরা সবাই হতাশার মধ্যে। কি জানি হয়! সবাই ঠাট্টা করছে, মুসলমানদের বালক কোথায়? একটু পরেই ফটফটে এক বালক এসে হাজির। মাথায় পাগড়ী আর পড়নে জোব্বা ।

আরো পড়ুন: কলেজ ছাত্রীর পরিবর্তন (পর্ব-১)

তালেবে এলেম বালক নসুরে বললেন- পাদ্রী সাহেব! বলুন আপনার প্রশ্ন। পাদ্রী রেগে মেগে বললেন, রাখেন আমার প্রশ্ন, আগে বলুন। আপনি সময় নষ্ট করেছেন কেন? বালক বললাে- তাহলে শুনুন, আমি আসতে রাস্তায় একটি নদী পড়ে ছিল, পার হওয়ার মত কোনাে কিছু নেই, তাই বসে ছিলাম। তখন দেখি একটি বড় গাছ নদীর পাড়ে ছিল এটা এমনি কেটে পড়ল। এমনি আবার গাছটি চিরে কাঠ হয়ে গেল, এমনিতে আবার কাঠগুলাে জোরা লেগে নৌকা হয়ে গেল, আমরা নৌকায় উঠলাম, এমনিতেই আবার নৌকাটা চলতে চলতে আমাদেরকে ঐ পাড় থেকে এ পাড়ে এনে দিলাে, আমরা পার হয়ে আসি।

পাদ্রী সাহেব রেগে উঠে বললেন, তা কিভাবে হয়? একটি গাছ কোনাে লােক ছাড়া কোনাে মিস্ত্রী ছাড়া এমনি কাঠ হতে পারে? নৌকা হতে পারে? এই বালকের কথার কোনাে আগাগােড়া নেই। একটি গাছ কখনাে এমনি এমনিই এসব হতে পারে না। বালক একটু মুচকি হেসে বললাে- আপনি ঠিকই বলেছেন, এমনিতে এসব হতে পারে না। এখন আপনিই বলুন একটি গাছ যদি এমনিই কাঠ চিরে নৌকা হতে পারে না। এত বড় আসমান, এত বড় জমিন, এত বিশাল পাহাড় পর্বত, নদীনালা, গাছপালা, পশু পাখি সবকিছু কি এমনি হতে পারে? একটু চিন্তা করুন, ছােট একটি গাছ কিভাবে বড় হয়, আবার ফল ধরে, ফল পাকে, এগুলাে এমনি হতে পারে? বলুন, এগুলাে কি এমনি হতে পারে? না, কখনাে হতে পারে না।

অন্য পোস্ট: কলেজ ছাত্রীর পরিবর্তন (পর্ব-২)

নিশ্চয় এর পিছনে একজন মিস্ত্রী বা কারিগর আছে। তিনিই হলেন- আপনার আমার সব কিছুর মালিক ও সৃষ্টিকর্তা একমাত্র আল্লাহ। এবার পাদ্রী সাহেব মাথা নেড়ে সম্মতি জানালেন, হ্যা, আমার এখন বুঝে এসেছে। সব কিছু এমনি হয় না। এর একজন কারিগর আছে, আর তিনি হলেন- একমাত্র আল্লাহ । তারপর পাদ্রী সাহেব আরাে কয়েকটি প্রশ্ন করলেন । আর বালক তার দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিলেন । এই অকৃত্রিম উত্তর পেয়ে পাদ্রী সাহেব ঈমান আনলেন, মুসলমান হয়ে গেলেন। আরাে অনেক বিধর্মী ঈমান আনলেন, ইসলামের ছায়াতলে জায়গা নিলেন। আর মুসলমানদের কথা কি বলতে হবে? হ্যা, আলেম ওলামা ও মুসলমারা বালকের বুদ্ধিযুক্ত জবাব দেখে আর মুসলমানদের বিজয় দেখে সবার মাঝে আনন্দের শ্রুত ৰয়তে লাগল। হৃদয়ের আহ্বান : প্রিয় পাঠক পাঠিকা- আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবার মানকে আরাে মজবুত করে দিন। মৃত্যুর সময় ঈমান আমলের সাথে মৃত্যু বরণ করার তাওফিক দান করুন। আর এমন বরে যাওয়ার তাওফিক দান করুন, যার দ্বারা বিনা হিসেবে জান্নাত সব হয়। আল্লাহর কাছে তাওফিক ভিক্ষা চাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *